• E-paper
  • English Version
  • রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৭ পূর্বাহ্ন

আগামীকাল খোলা হচ্ছে কক্সবাজারের হোটেল-মোটেল ও গেস্ট হাউস

মুহিব উল্লাহ রায়হান (উখিয়া) কক্সবাজার
  • আপডেটের সময় বুধবার ২৩ জুন, ২০২১

দেশে দ্বিতীয় ধাপে মহামারী করোনাভাইরাস সংক্রমণে পৃথিবীর সর্ববৃহৎ সমুদ্র সৈকত ও পর্যটন কেন্দ্র কক্সবাজারের সকল হোটেল-মোটেল ও গেস্ট হাউস বন্ধ ঘোষণা করেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসক।

বৃহষ্পতিবার (২৪ জুন) থেকে সীমিত পরিসরে খোলা হচ্ছে কক্সবাজারের হোটেল-মোটেল ও গেস্ট হাউস। কিন্তু একেবারে বন্ধ থাকবে কক্সবাজারের সকল পর্যটন কেন্দ্র।

বন্ধ ঘোষণার দীর্ঘ তিন মাস পর আগামীকাল থেকে সীমিত পরিসরে কক্সবাজারের হোটেল-মোটেল ও গেস্ট হাউস খোলার নির্দেশ দেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. হেলালুদ্দীন আহমেদ।
(২১ জুন) সোমবার বিকালে এক মতবিনিময় সভায় এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান।

তিনি বলেন পর্যটন সংশ্লিষ্ট মানুষের জীবন-জীবিকা নির্বাহের দাবির প্রেক্ষিতে শর্তসাপেক্ষে হোটেল মোটেল ও গেস্ট হাউস খুলে দেয়া হচ্ছে। স্বাস্থ্যবিধি বাস্তবায়নে গঠন করা হয়েছে একটি মনিটরিং কমিটি। এই কমিটি হোটেল মোটেল কর্তৃপক্ষকে প্রয়োজনীয় দিকনির্দেশনা বেঁধে দিয়েছে। দিকনির্দেশনা সমূহ বাস্তবায়নে কোন ব্যত্যয় ঘটলে মনিটরিং কমিটি আবারও বন্ধ করে দেবে হোটেল মোটেল।

এদিকে কক্সবাজারের হোটেল-মোটেল ও গেষ্ট হাউজ খোলার অনুমতি পেলেও হোটেল মালিক ও স্টাফদের মুখে হাসির কোন আভাস পাওয়া যাচ্ছে না। কারণ হোটেল খোলা থাকলেও বন্ধ থাকবে কক্সবাজারের সকল পর্যটন স্পট। পর্যটক আসলেই হোটেল মালিকরা আয়ের উৎস খুঁজে পাই। এরই পরিপ্রেক্ষিতে হোটেল মালিকদের আনন্দ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।
এর আগের দীর্ঘ তিন মাস ধরে লাখ লাখ টাকা ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে হোটেল মালিকরা।

তবে কক্সবাজারের হোটেল মালিক ও স্টাফরা সীমিত পরিসরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে হোটেল খুলে দেওয়ায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন । এবং সীমিত পরিসরে পর্যটন স্পটগুলো খুলে দেওয়ার আশা ব্যক্ত করেন।


এই ক্যাটাগরিতে আরো খবর