• E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:০৫ পূর্বাহ্ন

দিনাজপুরে বেড়েছে শীতের তীব্রতা

মোঃ আজিজুর রহমান, দিনাজপুর
  • আপডেটের সময় মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর, ২০২১

অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর যেমন বৃষ্টির পরিমাণ বেশি ছিল, তেমনই শীতের তাপমাত্রাও বেশি হবে আশঙ্কা আবহাওয়া অফিসের।

নেমে এসেছে শীত ও কুয়াশা। চলতি মাসের শুরু থেকেই উত্তরাঞ্চলের আট জেলায় শীতের তীব্রতা বেড়ে চলছে। গরম গরম কাপড় বিক্রি শুরু করছেন দোকানীরা। রাতে বাতাস বইছে, তাই কাঁথা-কম্বল ব্যবহার করছেন মানুষ। আজ থেকে বেড়েছে প্রকোপ ভোর থেকেই ঝিরিঝিরি শীত পড়ছে। উত্তরাঞ্চলের জেলা পঞ্চগড় ঠাকুরগাঁও দিনাজপুর নীলফামারীতে সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত সূর্যের আলো চোখে পড়েনি।

এ বছর শীত জেঁকে বসার ইঙ্গিত দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। চলতি বছর বৃষ্টির দাপটের না থাকলেও আসছে হাড়কাঁপানো শীতের দাপট। অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর যেমন বৃষ্টির পরিমাণ কম ছিল, অথচ এবছর শীতের তাপমাত্রাও বেশি হবে মনে করছেন অনেকে।আবহাওয়াবিদরা জানান, রংপুর বিভাগে তাপমাত্রা প্রতিদিন কমতে শুরু করছে। উত্তরাঞ্চলের পঞ্চগড়ের তেতুলিয়ায় তাপমাত্রা উঠা-নামা করছে। ধারণা করা হচ্ছে, আগামী দুয়েকদিনে তাপমাত্রা আরো নিচের দিকে নেমে আসতে পারে।

সোমবার দিবাগত রাত থেকেই শীতের তীব্রতা একটু বেশি টের পাওয়া যাচ্ছে এই অঞ্চলে।

দিনাজপুর ও নীলফামারীর সৈয়দপুর ও ডিমলা উপজেলার আবহাওয়া অফিস জানিয়েছেন। দিনাজপুরের খানসামা উপজেলার ভ্যানচালক বিধান রায় বলেন, গত কয়েকদিন ধরে শীত বেড়েই চলছে। রাতে ঠাণ্ডা দিনের দুপুরে একটু গরম লাগছে। তবে অনেক বেশি শীত এসে পড়েছে। রাতে কাঁথা-কম্বল ছাড়া ঘুমানো যায় না। আজ সকাল থেকে যে হারে শীত পড়ছে আমাদের ভ্যান নিয়ে বাইরে বাইর হয় কঠিন শীতে গা ভিজে যাচ্ছে।

দিনাজপুরের মুন্সিপাড়া এলাকার নুরুল ইসলাম জানান, প্রতিদিন শীত বাড়ছে। এ কারণে রাতে গরম কাপড় বের হতে হচ্ছে।

রংপুর জেলা সিভিল সার্জন জানান, রংপুরসহ উত্তরাঞ্চলে এবার আগাম শীত শুরু হয়েছে। তবে শীতের সময় যেকোনো ভাইরাসজনিত রোগ বাড়তে পারে। এর জন্য সবাইকে সর্তক থাকার আহ্বান জানান তিনি।

‘আগামীতে শীত বেশি হলে হৃদরোগী, ডায়াবেটিক রোগী, বয়ষ্ক ও শিশুরা বেশি আক্রান্ত হতে পারে,’ বলেন জানিয়েছেন।


এই ক্যাটাগরিতে আরো খবর