• E-paper
  • English Version
  • শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১১:৩৮ অপরাহ্ন

বৃষ্টি ও সে

অলোক আচার্য
  • আপডেটের সময় রবিবার ১০ অক্টোবর, ২০২১

 

 

অফিসে রওনা হয়েছি। ঝুম বৃষ্টি নামলো। এত সকালে সব দোকান খোলেনি। প্রথম ধাক্কাতেই অনেকটা ভিজে গেলাম। দৌড়ে আশ্রয় নিলাম এক মার্কেটের নিচে। আমি যাওয়ার আগেই সেখানে আরও অনেকেই সেখানে আশ্রয় নিয়েছে। কোনোমতে শরীর বাঁচিয়ে দাঁড়ালাম। নিচে বৃষ্টির ছাঁট এসে ভিজে যাচ্ছে। বিরক্তির সাথে অপেক্ষা করছি। আচমকা এক নারী কন্ঠ আমাকে উদ্দেশ্য করে বললো, ভাইয়া একটু সরে দাড়ান তো?” আমি ঘুরে পেছনে তাকালাম। এক তরুণী আমার সরে দাঁড়ানোর অপেক্ষায়। আমার অনড় ভাব লক্ষ্য করে আবারও বললো, একটু চাপেন না, ভাই। এবার কণ্ঠে স্পষ্ট  বিরক্তি মেশানো। দেখলাম তরুণীটি আমার চেয়ে অনেকটা ভিজে গেছে। কিন্তু সেখানকার অবস্থা এমন যে একটু সরে দাড়ানোও কষ্টকর ব্যাপার। আমি তবুও চাপাচাপি করে সরে তরুণীটিকে জায়গা করে দিলাম। সে প্রায় আমা গা ঘেঁষে এসে দাড়ালো। সত্যি কথা বলতে আজ পর্যন্ত আমি কোনো মেয়ের এতটা কাছে আসিনি। আজ বৃষ্টিটা সেই সুযোগ করে দিলো। প্রথমে অসময়ে বৃষ্টি খারাপ লাগলেও এখন আর খারাপ লাগছে না। এখন তরুণীটির শরীর থেকে আমি পারফিউমের সুগন্ধ পাচ্ছি। পারফিউমের সুগন্ধ ছাড়িয়ে আরও একটি সুগন্ধ আসছে। আমি শ্বাস টেনে ভেতরে নেই। মনে মনে প্রার্থনা করি বৃষ্টিটা যেন আজ শেষ না হয়।

 

বিজ্ঞাপন


এই ক্যাটাগরিতে আরো খবর