• E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:৩৯ পূর্বাহ্ন

যুব দক্ষতা বৃদ্ধি করতে হবে 

ইমরান খান রাজ 
  • আপডেটের সময় বুধবার ৩ নভেম্বর, ২০২১

বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার একটি বিশাল অংশ হচ্ছে যুব। যার মধ্যে যুব পুরুষ ও যুব মহিলা রয়েছে। একটি দেশের অর্থনৈতিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় উন্নতি ও অগ্রগতির পেছনে যুবদের গুরুত্ব অপরিসীম। যুবদের অংশগ্রহণ ব্যতীত আধুনিক বিশ্ব কল্পনা করা যায় না। কারন একটি দেশের মূল চালিকাশক্তি হচ্ছে যুবক-যুবতীরা। প্রতিটি দেশেই যুব সমাজের উন্নয়ন, অগ্রগতি ও দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে সেই দেশের সরকার কাজ করে থাকে। হাতে নেয় নানামুখী উদ্যোগ এবং তা বাস্তবায়নের মাধ্যমে প্রকৃত উন্নয়ন সাধন করা হয়ে থাকে। বাংলাদেশে যুব দক্ষতা উন্নয়ন, অর্থনীতিতে যুবদের অবদান বৃদ্ধি, দেশ ও সামাজিক উন্নয়নে যুবদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত ও বৃদ্ধি করতে প্রতিবছর নভেম্বর মাসের ১ তারিখে জাতীয় যুব দিবস উদযাপন করা হয়। যুব উন্নয়ন-ই হয় এই দিবস উদযাপনের মূল স্লোগান।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপট লক্ষ্য করলে দেখা যায়, এদেশে বেশিরভাগ যুবরাই উন্নতির আড়ালে থেকে যায়। পর্যাপ্ত প্রশিক্ষণ, উন্নত শিক্ষা ও সঠিক দিকনির্দেশনার অভাবে আমাদের দেশের বহু যুব ভুল পথের দিকে ছুটে চলে৷ চাকরি না পেয়ে কেউ হতাশ হয়ে মাদকের ভয়াল আগ্রাসনের দিকে চলে যায়৷ আবার কেউ অর্থনৈতিক ও পারিবারিক সংকট সমাধান করতে না পেরে নিজেই নিজের জীবন শেষ করে দেয় ! আর তাঁদের এই ভুল সিদ্ধান্তের ফল ভোগ করতে হয় তাঁদের পরিবার ও প্রিয়জনদের। বাংলাদেশের যুবসমাজকে আলোর পথ দেখাতে, তাঁদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে পারিবারিকভাবে সচেতন হতে হবে। সেইসাথে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে যুবদের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে কাজ করে যেতে হবে। যুবদের বিভিন্ন সামাজিক উন্নয়নমূলক কার্যক্রমে যুক্ত করতে হবে। পাশাপাশি তাঁদেরকে বহুমুখী শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ করতে হবে।
যুবদের দক্ষতা বৃদ্ধি করতে কর্মমুখী শিক্ষার প্রসার ঘটাতে হবে। কারিগরি শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে তাঁদের। এজন্য দেশে পর্যাপ্ত কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠিত করতে হবে সরকারকে৷ দেশের প্রতিটি জেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ে কারিগরি শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ করে দিতে হবে যুবদের। যুব দক্ষতা উন্নয়নে গ্রামাঞ্চলসহ মফস্বল এলাকার যুবদের প্রশিক্ষণ এর মাধ্যমে দক্ষ করে গড়ে তুলতে হবে। তাঁদেরকে যথাযথ প্রশিক্ষণ দিয়ে দেশের বাইরে কর্মক্ষেত্রে পাঠালে তাঁরা বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করে নিজ পরিবার ও দেশের অর্থনীতিতে অবদান রাখতে পারবে৷ এজন্য সরকারিভাবে বিনামূল্যে দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ এর প্রসার বাড়াতে হবে। বর্তমান সরকার যদিও এক্ষেত্রে অনেক কাজ করছে। তবুও এই প্রশিক্ষণের আওতা ও পরিধি বাড়াতে হবে। পাশাপাশি যুব সমাজকে মাদকের ভয়াবহতা সম্পর্কে অবহিত করতে হবে। মাদক শুধুমাত্র একজন যুবক বা একজন যুবতীর জীবন ধ্বংস করে না। এই মাদক পুরো পরিবার ও সমাজব্যবস্থাকে নষ্ট করতে যথেষ্ট ! তাই মাদক থেকে যুব সমাজকে রক্ষা করতে হবে। মাদকের বিরুদ্ধে পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয় সচেতনতা ও আন্দোলন গড়তে হবে। বর্তমান যুগ হচ্ছে আধুনিক যুগ। তাই আমাদের যুবদের আধুনিক প্রযুক্তি সম্পর্কে অবহিত করতে হবে। তাঁদেরকে প্রযুক্তির যথাযথ ব্যবহারের মাধ্যমে উপার্জন করার সুযোগ তৈরি করে দিতে হবে৷ এক্ষেত্রে তাঁদেরকে প্রশিক্ষণ এর মাধ্যমে দক্ষ করে গড়ে তুলতে হবে। সর্বোপরি যুবরাই হচ্ছে আমাদের প্রাণশক্তি। আর এই প্রাণশক্তি যতো বেশি দৃঢ় হবে, আমরা ততো বেশি সমৃদ্ধ ও উন্নত হবো৷


এই ক্যাটাগরিতে আরো খবর