• E-paper
  • English Version
  • রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:৩৩ পূর্বাহ্ন

স্ত্রী’দর্শন || রোড টু সাকসেস

আখতার উজ্জামান সুমন
  • আপডেটের সময় বৃহস্পতিবার ৮ জুলাই, ২০২১

আমাদের প্রত্যেকেরই নিজের প্রতি আস্থা স্থাপন করতে ও অনুপ্রেরণা জাগাতে অন্যের মন্তব্যের প্রয়োজন হয়।

একটা কথা অনেকেই বলে থাকেন। কথাটা তারা তাদের বাস্তব জীবনের অভিজ্ঞতা থেকে বলে থাকেন হয়তো।

তারা বলেন- “একজন স্ত্রীলোক তার স্বামীর সফলতায় অবদান রাখতে পারেন।”
যেমনঃ কোনো স্ত্রীলোক যদি তার স্বামীর কাজে যাওয়ার মুহূর্তে তাকে বাসা থেকে হাসিমুখে বিদায় জানান এবং যে কাজ করার জন্য স্বামী লোকটি বাহিরে যাচ্ছেন সেই কাজে অনুপ্রেরণা যোগাতে পারে এমন কথা শুনিয়ে দেন, তাহলে স্বামী লোকটির কাজের সফলতায় তা অনেকখানি প্রভাবক হিসাবে কাজ করে।

‘রোড টু সাকসেস’ এর পনেরোটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের উদ্ভাবক হিসাবে এখানে আমি একটা কথা আপনাদেরকে জানাতে চাই- আমার সফলতার পেছনে আমার স্ত্রী’রও অবদান রয়েছে। আমার স্ত্রী আমাকে প্রতিদিন কাজে যাওয়ার মুহূর্তে দরজায় বিদায় জানানোর সময় বলেন- “দ্যাখো, আজকে তোমার কাজটা অনেক ভালো হবে।”

আমার স্ত্রী কখনো আমাকে দোষারোপ করে বিরক্ত করেন না, কখনো নিন্দা করেন না। আমি কখনো দেরি করে বাসায় ফিরলে আমার স্ত্রী বকবক করেন না। আমার স্ত্রী আমাকে সবসময় প্রশংসা করে বলেন যে- আমি নাকি অত্যন্ত মেধাবী একজন ব্যক্তি।

একদিন আমার স্ত্রী একটি অসাধারণ কাণ্ড করে বসলেন। তিনি আমার জন্য একটি শপথনামা লিখে রাখলেন, এবং তাতে স্বাক্ষর করতে বললেন। তারপর তিনি সেটাকে আমার দৃষ্টির সম্মুখে এমন স্থানে ঝুলিয়ে দিলেন, যেন কাজ করার সময় প্রতি মূহুর্তে সেটা আমার নজরে পড়ে। ঐ শপথনামাটি হুবহু এখানে তুলে ধরা হলোঃ

#শপথনামা
নিজের প্রতি আমার আস্থা আছে। আমার সাথে যারা কাজ করেন, তাদের প্রতিও আমার আস্থা আছে। আমার বন্ধুদের প্রতি আমার আস্থা আছে। আমার পরিবারের প্রতিও আমার আস্থা আছে।

আমি বিশ্বাস করি যে, সফলতার জন্য আমার যা যা প্রয়োজন সেগুলোর সবই ঈশ্বর আমাকে দেবেন, যদি আমি বিশ্বস্ততা, দক্ষতা ও সৎ ভাবে সেবা প্রদানের মাধ্যমে সেগুলোকে অর্জন করার জন্য সাধ্যমতো চেষ্টা করি।

আমি প্রার্থনায় বিশ্বাস করি। জীবনের শেষ দিন পর্যন্ত ঐশ্বরিক নির্দেশনা মোতাবেক যে প্রার্থনা করার কথা বলা হয়েছে, তা না করে কখনো রাতে ঘুমাতে যাবো না। আমি এইরূপ প্রার্থনা করবো যে, আমি যেন অন্যদের প্রতি ধৈয্যশীল হতে পারি, পরমতসহিষ্ণু হতে পারি।

আমি বিশ্বাস করি যে, সফলতা ভাগ্যের ওপর নির্ভর করে না এবং বন্ধু, সহকর্মী ও কর্মচারীদেরকে ঠকিয়ে ধান্দাবাজি করে সফলতা অর্জন করা যায় না। বরং বুদ্ধিদীপ্ত প্রচেষ্টার মাধ্যমে সফলতা অর্জন করতে হয়।

আমি বিশ্বাস করি যে, জীবনে আমি যা যা করবো তা-ই আমি জীবন থেকে ফেরত পাবো। সুতরাং, আমি অন্যের থেকে যেমনটা পাওয়ার আশা করি অন্যকেও তেমনটাই দেওয়ার সর্বাত্মক চেষ্টা করবো। আমি যাদেরকে সহ্য করতে পারি না, তাদের ব্যাপারে কখনো অপবাদ দেবো না। অন্যরা যে যা-ই করুক না কেন, আমি আমার দায়িত্বে অবহেলা করবো না। আমি সাধ্যমতো পরিশ্রম করবো, কারণ জীবনে সফল হওয়ার জন্য আমি অঙ্গীকারবদ্ধ। আমি জানি, ন্যায়নিষ্ঠ প্রচেষ্টার মাধ্যমে সফলতা অর্জন করতে হয়। আমাকে যারা অসন্তুষ্ট করেছে আমি তাদেরকে ক্ষমা করে দেবো, কারণ নিজের অজান্তে আমিও মাঝেমধ্যে অন্যকে অসন্তুষ্ট করি, তাদের ক্ষমাটাও আমার প্রয়োজন হবে।

(নেপোলিয়ন হিল’র ‘রোড টু সাকসেস’ অবলম্বনে)
ভাবানুবাদঃ আখতার উজ্জামান সুমন
বই সংগ্রহের লিঙ্কঃ

https://www.rokomari.com/book/217087/road-to-success


এই ক্যাটাগরিতে আরো খবর