• E-paper
  • English Version
  • শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২, ০২:৪৭ পূর্বাহ্ন

২ ঘন্টা ভোলা-লক্ষ্মীপুর মহাসড়ক অবরোধ

আকতারুল ইসলাম আকাশ, ভোলা
  • আপডেটের সময় শুক্রবার ৭ জানুয়ারী, ২০২২

ভোলায় পরাজিত নৌকা প্রার্থীর ৪ কর্মী-সমর্থকের উপর হামলার অভিযোগ উঠেছে বিজয়ী (স্বতন্ত্র) প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের বিরুদ্ধে।

শুক্রবার বিকেল ৪টায় ভোলা সদর উপজেলা ২নং পূর্ব ইলিশা ইউনিয়নের পাকার মাথা বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় ২ ঘন্টা ভোলা-লক্ষীপুর মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল ও ঝাড়ু মিছিল করেছেন নৌকা প্রার্থীর সমর্থকরা। এসময় তাঁরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

পরাজিত নৌকা মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী হলেন, মোহাম্মদ সোহরাওয়ার্দী মাষ্টার ও বিজয়ী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী হলেন (আনারস প্রতীকের) আনোয়ার হোসেন ছোটন।

পুলিশ ও বিক্ষোভকারীরা অভিযোগ করে জানান, বুধবার (৫ জানুয়ারি) ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ার হোসেন ছোটন বিজয় লাভ করার পর থেকেই বেপরোয়াভাবে নৌকার কর্মী-সমর্থকদের উপর নির্মম নির্যাতন চালিয়ে আসছেন। হামলা ভাংচুর ও লুটপাট করছেন নৌকা সমর্থকদের বাড়িঘর দোকানপাট।

সবশেষ শুক্রবার বিকেল ৪টার দিকে ইউনিয়নের পাকার মাথা বাজারে নৌকার কর্মী মো. মহসিন ঘরামিকে একা পেয়ে বেধড়ক মারধর করেন বিজয়ী প্রার্থীর কর্মী মো. শামসু, শাহিন, রাকিব হাওলাদার, জুবায়ের ও প্রার্থীর ছোট ভাই মিজানসহ আরও ১০ থেকে ১৫ জন।

অজ্ঞান অবস্থায় আহত কর্মী মহসিনকে স্থানীয়দের সহায়তায় উদ্ধার করে এর বিচারের দাবিতে নৌকা প্রার্থীর বাড়ির সামনের সড়কে গাছ ফেলে রেখে ২ ঘন্টাব্যাপী বিক্ষোভ মিছিল ও ঝাড়ু মিছিল করেন প্রার্থীর সমর্থকরা।

এসময় বিক্ষোভকারীরা আরও দাবি তোলেন, মহসিন ছাড়াও মো. নবী আমানল ও জামালসহ আরও কয়েকজনকে পর্যাক্রমে হামলা করেছে বিজয়ী প্রার্থীর সমর্থকরা।

এ ঘটনার পর থেকে বিক্ষোভকারীরা ভোলা-লক্ষীপুর মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করেন। যাঁর কারনে ভোলা-লক্ষীপুর মহাসড়কটি ২ ঘন্টা অবরুদ্ধ ছিলো। যাঁর কারনে রাস্তার উভয়দিকে তীব্র যানযটের সৃষ্টি হয়।

পরে ভোলা সদর থানার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. ফরহাদ সরদার ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।

তবে এবিষয়ে অভিযুক্ত বিজয়ী চেয়ারম্যান প্রার্থী আনোয়ার হোসেন ছোটনের কাছে জানতে চাইলে তিনি জানান, এটি একটি নাটক সাজিয়ে তাঁর বিরুদ্ধে ঝাড়ু ও জুতা মিছিল করেছে নৌকার সমর্থকরা। তিনি বিষয়টি খতিয়ে দেখতে থানায় যাচ্ছেন বলেও জানান।

ভোলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. ফরহাদ সরদার জানান, নৌকার কয়েকজন কর্মী সমর্থকদের মারধর করেছেন বিজয়ী প্রার্থীর কর্মী সমর্থকরা। এমন অভিযোগ পেয়েছেন তিনি। যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে অভিযোগটি খতিয়ে তাদের বিরুদ্ধে দ্রুতই আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।


এই ক্যাটাগরিতে আরো খবর