• E-paper
  • English Version
  • বৃহস্পতিবার, ১৯ মে ২০২২, ০৩:০৭ পূর্বাহ্ন

আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে ১০জন আহত

মোঃ রফিকুল ইসলাম, টাঙ্গাইল
  • আপডেটের সময় বুধবার ২ ফেব্রুয়ারী, ২০২২

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে অবৈধ বালুর ঘাট দখল নেয়াকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের দুপক্ষের সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন। বুধবার (২ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে এই ঘটনা ঘটে।

আহতদের মধ্যে ছয় জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- উপজেলার নিকরাইল ইউনিয়নের পুনর্বাসন এলাকার হযরত আলীর ছেলে শহিদুল ইসলাম (৩৯) পলশিয়া এলাকার আব্দুল কাদেরের ছেলে শাহ আলম (৩০)আমজাদ হোসেনের ছেলে শফিকুল (৩৫) নামদার আলীর ছেলে হোসেন আলী (৫৫) আব্দুল লতিফের ছেলে সবুজ (১৮) ও ইয়াসিনের ছেলে ইয়ামিন (৩৮)।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার নিকরাইলে প্রায় ২০টি অবৈধ বালুর ঘাট রয়েছে। শুষ্ক মৌসুমে নদী শুকিয়ে গেলে শুরু হয় নদীর পাড় কেটে বিক্রি।

বুধবার দুপুরে উপজেলার নিকরাইল ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুল হক মাসুদ এবং সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মতিন সরকারের লোকজন বালুর ঘাটের জন্য রাস্তা নির্মাণ ও দখলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

নিকরাইল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন সরকার বলেন চেয়ারম্যান মাসুদুল হক মাসুদ ও নুহু মেম্বারের লোকজন বালুর ঘাট দখল ও ক্যাশ কাউন্টার ভাঙচুর করে লুটপাট করে। এসময় তারা ককটেল ও গুলি ছোড়ে। এতে ৮ জন আহত হয়েছেন।

নিকরাইল ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মাসুদুল হক মাসুদ বলেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির লোকজন অন্যদের জমি দখল করে ঘাট তৈরি করছিল। এসময় বাঁধা দিতে গেলে তারা আক্রমণ চালায়। এতে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়েছেন।

ভূঞাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুল ওহাব বলেন বালুর ঘাট দখল নেয়াকে কেন্দ্র করে সাবেক চেয়ারম্যান ও নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানের লোকজনের সাথে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে উভয়পক্ষ দেশীয় অস্ত্র ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৭ রাউন্ড টিয়ারশেল নিক্ষেপ করা হয়। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে।


এই ক্যাটাগরিতে আরো খবর