মিশিগানে নারী উদ্যোক্তাদের ঈদ মেলা অনুষ্ঠিত

তোফায়েল রেজা সোহেল, মিশিগান (যুক্তরাষ্ট্র)
  • আপডেটের সময় সোমবার ২৮ মার্চ, ২০২২

যু্ক্তরাষ্ট্রের মিশিগান রাজ্যে বাংলাদেশী প্রবাসী নারী উদ্যোক্তাদের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত হয়েছে ভায়োলেটস ঈদ মেলা। স্থানীয় সময় শনিবার ওয়ারেন সিটির মৃধা বেঙ্গলি কালচারাল সেন্টারে এ শুরু হয়। এ মেলার আয়োজন করেছে নারী উদ্যোক্তাদের অনলাইনভিত্তিক সংগঠন ভায়োলেটস।

যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন রাজ্যে থেকে প্রবাসী বাংলাদেশি নারী উদ্যোক্তারা পণ্য নিয়ে মেলায় আসেন। বিভিন্ন রঙ-বেরঙের সুতার তৈরি নকশা করা দেশিয় পোশাক, বেত ও পাটজাতের হস্তশিল্প, খাবারসহ দেশিয় বিভিন্ন পণ্য মেলায় প্রদর্শনের পাশাপাশি বিক্রি হয়েছে। রোজা মাসকে সামনে রেখে মূল্যছাড়ও দিচ্ছে অনেক প্রতিষ্ঠান।

বিজ্ঞাপন


মেলা ঘুরে দেখা গেছে, ১৫টি স্টল বসেছে। এতে তাঁতের শাড়ি, জামদানী, মসলিম, জামা, পাঞ্জাবিতে বুটিক ও বাটিকসহ স্বদেশিয় নানা জিনিসপত্র নিয়ে হাজির হয়েছেন বাংলাদেশি প্রবাসী নারী উদ্যোক্তারা। নারী উদ্যোক্তাদের তৈরি নিপুণ কারুকাজের পণ্য নজর কেড়েছে ক্রেতাদের। তারা জানালেন, পণ্যগুলো অনলাইনে সারাবছরই বিক্রি করে থাকেন।

মেলায় অংশ নেওয়া স্টলগুলোর নাম হচ্ছে- মৃত্তিকা ইউএস, রাফসানিয়া, শেরতাজ, স্পারক্যাল টাচ্, চিত্রপট, মামনিকা, নিহাবা ডে-লাইট, আচল, মৌক্লাসি কালেক্ট, ম্যাটা, ভ্যানিউস ফ্যাশন,নাশ অ্যাটলিন ও লুপস ফ্যাশন।

বায়োলেটসের ফাউন্ডার শারমিন তানিম যুগান্তরকে বলেন, বায়োলেটস নারী উদ্যোক্তাতাদের অনলাইন ভিত্তিক একটি গ্রুপ। এই গ্রুপের মোটিভ হচ্ছে প্রবাসী নারীদের নিয়ে কাজ করা। আমরা এ মেলার আয়োজন করেছি, যারা দেশিয় পণ্য উৎপাদন নিয়ে কাজ করেন মূলত তাদেরকে ফোকাস করার জন্য। কিছু বিজনেস স্টল অন্য স্টেট থেকে আমাদের মেলাতে এসে যোগ হয়েছে, শুধুমাত্র বিদেশের মাটিতে স্বদেশিয় পণ্য ও সংস্কৃতিকে তুলে ধরার জন্য। আমরা ব্যাপক সাড়া পেয়েছি, আমরা খুব খুশি।

উদ্যোক্তা ফারজানা রহমান সানিয়া জানান, রাফসানিয়া নামে অনলাইনভিত্তিক একটা প্রতিষ্ঠান গড়েছেন। স্টলের সব জিনিসই হাতে বানানো। সেলাই ও নকশা করা ব্যাগ, ম্যাট, পাপোশ, চুড়ি, ব্লক-বটিকসহ নকশী কাঁথা এবং নানান সৌখিন পণ্য রয়েছে।

নিউজার্সি রাজ্যে থেকে স্টল নিয়ে এসেছেন শেরতাজ প্রতিষ্ঠানের শেরতাজ শিরিন চৌধুরী। তার স্টলে রয়েছে, সিলেটের ঐতিহ্যবাহী শীতল পাটি, হাতপাখা, মনিপুড়ি শাড়ি এবং নানান জুয়েলারী সামগ্রী। সামনে রোজা মাস উপলক্ষে প্রতিটি পণ্যে ১০ শতাংশ মূল্যছাড় দিয়েছে শেরতাজ।

মৃত্তিকা ইউএস-এর তাসনিয়া রেজা জানিয়েছেন, জামদানি ও মসলিম শাড়িতে নিজেরা এমব্রডারি করেন। তিনি বাংলাদেশের টাঙ্গাইল,জামালপুর, রাজশাহী ও নারায়নগঞ্জ থেকে এসব পণ্য আনেন। মেলাতে বাংলাদেশি জিনিসের প্রতি সবার আগ্রাহ বেশি।

ফাহমিদা হক বলেন, মেলাতে এসে সবাই মিলে খুব আনন্দ করেছি। স্টলগুলো খুব সুন্দর ছিল। অনেক দেশিয় পণ্য একসঙ্গে এক জায়গায় পেয়েছি।


এই ক্যাটাগরিতে আরো খবর